• শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১১:১৩ পূর্বাহ্ন

প্রাথমিক শিক্ষায় তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি

প্রতিবেদকঃ / ৪১৯ পোস্ট সময়
সর্বশেষ আপডেট সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০

উজ্জল কুমার বিশ্বাস
“তথ্য যেখানে অপর্যাপ্ত, যোগাযোগ যেখানে সীমিত, প্রযুক্তির ব্যবহারে যেখানে অনীহা, মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষাবাস্তবায়ন সেখানে দুরুহ”। একটাসময়ছিলযখনবলাহতো“যেজাতিযতশিক্ষিত, সে জাতিততো বেশিউন্নত”। কালেরবিবর্তে,সময়েরআবর্তে সেই ধারনাঅনেকটাইপরিবর্তিতহয়েছে। যেহেতুবর্তমানযুগ তথ্য প্রযুক্তির যুগ,তাই যে জাতিযত বেশি তথ্য প্রযুক্তিতে উন্নত সে জাতিরশিক্ষাব্যবস্থা ততো বেশিমানসম্মত এবংতাদেরউন্নয়নওততো বেশি টেকসই। বহুলপ্রচলিতপ্রবাদ বাক্য Ò Knowledgeis power”এরপরিবর্তে বর্তমানেবলাহচ্ছে Ò Informationis power”যদিও Knowledge অর্থ্যাৎজ্ঞান এবং Information অর্থ্যাৎ তথ্য এরমধ্যে তাত্ত্বিক তেমন কোনপার্থক্য নেই।

১৯৯৬ সালেবিজয়ীহয়েবর্তমানসরকারপ্রথম“ডিজিটালবাংলাদেশ”গড়ার অঙ্গীকার করে। ২০০৯ সালেপুনরায়ক্ষমতায়এসেসকলসরকারী দপ্তরেওয়েব পোর্টালচালুসহডিজিটাল সেবাচালুকরে। পাসপোর্টেরআবেদন, অনলাইনেচাকুরীরআবেদন, শিক্ষার্থী ভর্তি, ফলাফলপ্রদান, জন্ম-মৃত্যুনিবন্ধন, ব্যাংকেঅনলাইন লেনদেন, পেনশন,বাস-ট্রেন-বিমানেরটিকিট, গ্যাস-বিদ্যুৎ-পানিরবিলসহবহুবিধকাজবর্তমানেঘরেবসেইকরাযাচ্ছে।

শিক্ষাখাতওএক্ষেত্রেপিছিয়ে নেই। A2iপ্রোগ্রামেরসহযোগিতায়শিক্ষামন্ত্রনালয়এবংপ্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রণালয়েরউদ্দ্যোগে ২০১০ সাল থেকে ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি ও মাল্টিমিডিয়াক্লাসরুমব্যবহারেরমাধ্যমে গতানুগতিকশিক্ষাদানপদ্ধতিরপরিবর্তে শিক্ষার্থী কেন্দ্রিকপাঠদানকরাহচ্ছে। ডিজিটাল কন্টেন্ট হচ্ছেপাঠ্যপুস্তকেবর্ণিতবিষয়েরশব্দ ও ছবিতে তৈরিঅডিওভিজ্যুয়ালউপকরণ। মাল্টিমিডিয়াক্লাসরুমেরমাধ্যমে শ্রেণিকার্যক্রম পরিচালনায়শিক্ষার্থীদেরবিষয়বস্তু ভালোভাবেআয়ত্ব করারপাশাপাশিমুখস্তকরারপ্রবণতাওকমেএসছে। একদিকে যেমনতাদেরএকঘেয়েমি দূরহয়েছে, অন্যদিকে লেখাপড়ারপ্রতিআগ্রহ পূর্বেরতুলনায়অনেকবৃদ্ধি পেয়েছে। তথ্য প্রযুক্তিগত শিক্ষানয়,বরংশিক্ষায় তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহারেরমাধ্যমে শিক্ষাকেবাস্তবজীবনমূখীকরারপ্রয়াসঅব্যাহতরাখা গুরুত্বপূর্ণ।

প্রাথমিকশিক্ষাঅধিদপ্তরেরবার্ষিকশুমারীপ্রতিবেদনঅনুযায়ীডিজিটালক্লাসরুম তৈরিতেসরকারএখনপর্যন্ত৬৫৫৯৩টি বিদ্যালয়েরমধ্যে প্রায় ৫৪ হাজার বিদ্যালয়েল্যাপটপ, প্রজেক্টরএবংসাউন্ডসিস্টেম বিতরনকরেছে। পাশাপাশিনাপাওয়া বিদ্যালয়গুলোরজন্যওল্যাপটপ কেনারপ্রক্রিয়াচলছে। এগুলোরব্যবহার, ডিজিটাল কন্টেন্ট তৈরি, ইন্টারনেটব্রাউজিংসহবিবিধকাজে দক্ষতাবৃদ্ধিরজন্য দেশের ৬৬টি প্রাইমারীটিচার্স ট্রেইনিংইনিস্টিটিউটে (পিটিআই) আধুনিকল্যাবপ্রতিষ্ঠাকরাহয়েছে। ইতিমধ্যে ৬৫ হাজারের বেশিশিক্ষককে ১২ দিনব্যাপিআইসিটিপ্রশিক্ষণ দেওয়াহয়েছে। প্রশিক্ষণেরআলোকে বিদ্যালয়পর্যায়েকার্যক্রম এবংপ্রয়োজনীয়পরামর্শেরজন্য মাঠপর্যায়েরকর্মকর্তাদের ৩ হাজার ৭০০ ট্যাববিতরনকরাহয়েছে।

বর্তমানকরোনাকালীনপরিস্থিতিতে বিদ্যালয়বন্ধ থাকায়শিক্ষার্থীদের স্বাভাবিক লেখাপড়াবাধাগ্রস্থ হচ্ছে। যদিওপ্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রনালয়এবংপ্রাথমিকশিক্ষাঅধিদপ্তরেরনির্দেশনায়এবংমাঠপর্যায়েরকর্মকর্তাদেরপ্রত্যক্ষতদারকিতে Zoom App, , মেসেঞ্জার, হোয়াটসআ্যাপেরমাধ্যমেশিক্ষকগণশিক্ষার্থীদেরলেখাপড়ার খোঁজনিচ্ছেনএবংপ্রয়োজনীয়নির্দেশনা দিচ্ছেন। বিভিন্নউপজেলায়অনলাইন স্কুলএরমাধ্যমে পাঠদানকরেশিক্ষার্থীদেরঘরেবসে শেখারসুযোগকরে দেওয়াহচ্ছে।অনেকপ্রতিষ্ঠানভার্চুয়ালপদ্ধতিতেপরীক্ষাওগ্রহণকরছেএবংমূল্যায়নকরেফিডব্যাকদিচ্ছে।। বিদ্যালয়পর্যায়েউপবৃত্তিকার্যক্রম, ই-প্রাইমারী তথ্য হালনাগাদ, APSC তথ্য এন্ট্রি, E-Monitoring তথ্য এন্ট্রি, সংসদ টিভি তথ্য, বইয়েরচাহিদা-বিতরনএন্ট্রি, শিক্ষার্থীদেরডাটাবেজ তৈরিসহবিভিন্নকাজ তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায়করতেহচ্ছে।

এতকিছুরপরওকিছুকিছুসীমাবন্ধতারজন্য কাক্সিক্ষতমানঅর্জনকরা সম্ভব হচ্ছেনা। এরঅন্যতমকারনহলোশিখণ শেখানোর দায়িত্বরতদেরপর্যাপ্ত ICTজ্ঞানেরঅভাব। এ অবস্থা হতেউত্তোরণেকিছুকরণীয়:
১। শিক্ষকগণের ICTদক্ষতাবৃদ্ধিওপ্রধানউপায়হলোনিয়োমিতঅনুশীলন, অনুশীলনএবংঅনুশীলন।
২। যেসকলশিক্ষকপ্রশিক্ষণ পেয়েছেনতারাতাদের বিদ্যালয়েরপ্রশিক্ষণবিহীনশিক্ষকদের এবিষয়েআগ্রহীকরেচর্চারমাধ্যমে দক্ষতাবৃদ্ধি করনেকার্যকরীভূমিকারাখতেপারেন।
৩। প্রশিক্ষণ পেলেকাজকরব, প্রশিক্ষণবিহীনশিক্ষকদের এই মানসিকতাত্যাগকরেশিখনেআগ্রহীহতেহবে।
৪। প্রধানশিক্ষকসাপ্তাহিকনিদিষ্টসময়বাসুবিধাজনকসময়েঅনুশীলনেরব্যবস্থা করতেপারেন।
৫।শিক্ষাঅফিসবাউপজেলারিসোর্স সেন্টারেরআয়োজনেমাঝেমধ্যে ICTরিফ্রেসার্স প্রশিক্ষণকরা যেতেপারে।
৬। প্রাথমিক স্তরের কোননির্দিষ্ট শ্রেণিহতে ICT শিক্ষাকারিকুলামেধারাবাহিকভাবেঅন্তর্ভূক্ত করা যেতেপারে।
৭। প্রাক-প্রাথমিকশিক্ষকেরমতো ICT শিক্ষকের পদ সৃষ্টিকরেনিয়োগ দেওয়া যেতেপারে।
৮। উপজেলা, ক্লাস্টারবাইউনিয়নভিত্তিকল্যাব স্থাপনকরা যেতেপারে।
৯। প্রতিটিপ্রাথমিক বিদ্যালয়েসরকারীভাবেউচ্চগতির Wi-Fi সংযোগ থাকলে Youtube বব্যবহারকরেশিক্ষামুলকভিডিও দেখানোসহউপজেলার ICT পারদর্শীশিক্ষকদেরদিয়েভার্চুয়ালপাঠদানেরমাধ্যমে ICT শিক্ষা দেওয়াসহজহবে।

সর্বপরি ICT জ্ঞানঅর্জনএবংএরব্যবহারেসকলেরআন্তরিকতা থাকতেহবে। আ্যান্ড্রয়েড ফোনব্যবহারকরতেশিশু থেকে শুরুকরেবয়স্কদেরওযেমনকোনধরনেরপ্রশিক্ষণেরপ্রয়োজনহয়না। শুধুমাত্রইচ্ছাএবংচর্চারমাধ্যমে দ্রুততমসময়ে ঐ দক্ষতাঅর্জিতহয়। তেমনিপ্রাথমিকশিক্ষায়ওব্যক্তিপ্রচেষ্টায়তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির সঠিকব্যবহারেরমাধ্যমেইমানসম্মত প্রাথমিকশিক্ষাঅনেকাংশেইনিশ্চিতকরা সম্ভব। লেখক ঃ উজ্জল কুমারবিশ^াস, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার, মধুখালী, ফরিদপুর


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
খান মোহাম্মদ জহুরুল হক

সম্পাদকীয় কার্যালয়ঃ
রাজবাড়ী প্রেসক্লাব ভবন (নীচ তলা),
কক্ষ নং-৩, রাজবাড়ী-৭৭০০।

Contact us: editor@dailyrajbarikantha.com

প্রকাশনাঃ
সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়নবী সার্কুলার রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত এবং দক্ষিণ ভবাণীপুর, রাজবাড়ী থেকে প্রকাশিত।

মোবাইল- ০১৭১১১৫৪৩৯৬,
বার্তা বিভাগ- ০১৭৫২০৪০৭২০,
বিজ্ঞাপন বিভাগ- ০১৯৭১১৫৪৩৯৬

error: Sorry buddy! You can\'t copy our content :) Content is protected !!