পাংশা পৌরসভা নির্বাচন: কাউন্সিলর প্রার্থী অতুর সরদারের বিরুদ্ধে ৮নং ওয়ার্ডের আচরণ বিধি লঙ্গন ও মহিলা কর্মীদের লাঞ্ছিত করার অভিযোগ

124

স্টাফ রিপোর্টার ঃ রাজবাড়ীর পাংশা পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে পৌরসভার সকল ওয়ার্ডের প্রার্থীরা গণসংযোগসহ ভোটারদের সাথে নিয়মিত কুশল বিনিময় করে যাচ্ছেন। যাচ্ছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে। গতকাল পাংশা পৌরসভার ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী ডালিম প্রতীকের ওদুদ সরদার (অতুর) এর বিরুদ্ধে আচরণ বিধি লঙ্গনসহ মহিলা কর্মীদের লাঞ্ছিত করার অভিযোগ উঠেছে।
এ বিষয়ে ওই ওয়ার্ডের অপর প্রতিদ্বন্দী কাউন্সিলর প্রার্থী উটপাখি প্রতীকের আল মাসুদ সরদার থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। এছাড়াও কাউন্সিলর প্রার্থী অতুর সরদারের বিরুদ্ধে তিনি নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্গনের অভিযোগ এনে রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা, পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, গত ১৯ জানুয়ারি দুপুর আনুমানিক ২ঘটিকার সময় কাউন্সিলর প্রার্থী আল মাসুদ সরদারের স্ত্রী ও কয়েকজন মহিলাকর্মী ৮নং ওয়ার্ডের মৈশালা এলাকায় বাড়ি বাড়ি গিয়ে ভোট চাওয়ার সময় প্রতিদ্বন্দী কাউন্সিলর প্রার্থী অতুর সরদারের নেতৃত্বে আফতাব বিশ^াস, সাগর সরদার, সোবাহান শেখ, আফছার বিশ^াস, রিপন সরদার, সালাম, দেবু পাল, ফিরোজ বিশ^াস, শুকুর আলী, খোকন ও রমজান বিশ^াস সহ ৭-৮ জন অজ্ঞাত ব্যক্তি তাদেরকে লক্ষ্য করতে থাকে। একপর্যায়ে তাদের সাথে অশোভন আচরণ ও কাপড় ধরে টানাটানি করে।
৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আল মাসুদ সরদার বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দী প্রার্থী অতুর সরদার তার সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে এলাকায় নির্বাচনের পরিবেশ নষ্ট করার চেষ্টা করে যাচ্ছে। ভোটারদের মাঝেও নানাবিধ ভয়ভীতি প্রদর্শন করছে। তার সাথে যারা রয়েছে তারা সকলেই মাদক, চুরি-ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের সাথে জড়িত। একাধিকবার অনেকেই পুলিশের হাতে ধরাও পড়েছে। অতুর সরদার ও তার সন্ত্রাসী বাহিনী আমার স্ত্রী ও কর্মীদের সাথে অশোভন আচরণ করায় আমি থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। এছাড়াও রাজবাড়ী জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, জেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটার্নিং কর্মকর্তা, পাংশা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা বরাবরও অভিযোগ দিয়েছি। আমি প্রশাসনের নিকট নির্বাচনে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আবেদন জানাচ্ছি। যাতে করে ৩০ জানুয়ারি নির্বাচনে ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করতে পারে।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত অতুর সরদারের মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তিনি ফোন রিসিপ করেননি।
পাংশা মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহাদাত হোসেন জানান, ৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী আল মাসুদ সরদার একটি লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্তপূর্বক প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here