রাজবাড়ীতে নির্বাচনের কারণে ফুল ব্যবসায় মন্দা

71

স্টাফ রিপোর্টার ঃ রাজবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন রোববার। এদিন বিশ^ ভালোবাসা দিবস । শহর জুড়ে নির্বাচনী আমেজ। যানবাহন চলাচলেও রয়েছে বিধি নিষেধ। এতে করে ফুল ব্যবসায় মন্দা দেখেছে।
বিশ^ ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুল ব্যবসায়ী ও তরুণদের সঙ্গে কথা বলে জানাযায়, বিভিন ্নধরনের গোলাপ, রজনীগন্ধা, জিপসী, গ্লাডিওলাস, চন্দ্রমল্লিকা, জারবেরা, ক্যাপগোপাল প্রভৃতি ফুল বিক্রি হয়। ক্রেতা সাধারণত প্রধান তরুণ-তরুণী। অন্যান্য বছরগুলোতে এই দিনে গোপাল বিক্রি হয় সাধারণত ৫০ টাকা। একটি সুন্দর গোলাপ কখনো কখনো ১০০টা বাতার চেয়ে বেশি দামেও কেউ কেউ বিক্রি করে। আর এবছর বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা করে। আগের দিন থেকেই ফুল কেনার ধুমপড়ে যায়। দোকানীদেরও ব্যস্ততা বেড়ে যায়। অতিরিক্ত লোক নিয়োগ দিতে হয়। কিন্তু এবার তেমন সাড়া নেই। দোকানগুলোতে তেমন কোনো ক্রেতা নেই।
কথা হয় ফুল কিনতে আসা আলী রেজা নামে এক ব্যক্তির সঙ্গে। তিনি বলেন, বিয়ে করেছি ১২ বছর। বিয়ের পর থেকে প্রতি বছর এই দিনে স্ত্রীর সঙ্গে ঘোরাঘুরি করি। তাছাড়া আমি বিভিন্ন দিবসের প্রিয়জনদের ফুল উপহার দেই। এবার তো প্রথমেই ধাক্কা খেলাম। কারণ আজও পহেলা ফাল্গুন নয়। ফেসবুকে সবাই ফাল্গনের শুভেচ্ছাও দিয়েছি। এখন বোকা বোকা লাগছে। শহর জুড়ে ঘোরার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু রোববার তো কোনো কর্মসূচিই শহরে পালন করা যাবে না। কি করবো বুঝতে পারছিনা।
বিথী ফুল ঘরের মালিক শহিদুল ইসলাম (৩৩) বলেন, ফুল আমাদের পারিবারিক ব্যবসা। আমার বাবা প্রায় ৩৫ বছর ধরে ফুলের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। আমি ২৩ বছর ফুলের ব্যবসার সঙ্গে জড়িত। এই দিনটিতে আমাদের প্রচুর বিক্রি করা হয়। সারা বছর আমরা এই দিনের আশায় থাকি। বিশেষ করে গোলাপফুল। গতবছর গোলাপ এনে ছিলাম পাঁচ হাজার। কিন্তু এবার এনেছি দুই হাজার। কারণ রাজবাড়ী পৌরসভা নির্বাচন। গাড়িঘোড়া- দোকানপাট বন্ধ থাকবে। এই ফুলও বিক্রি হবে কিনা সন্দেহ আছে।
রাজবাড়ী ফুল সেন্টারের মালিক কালাম মন্ডল বলেন, ২৫ বছর ধরে ফুলের ব্যবসা করি। মোকামে ফুলের দাম আগের বছরের মতোই স্বাভাবিক। রাজবাড়ীতে ভ্যালেন্টাইন ডে’তে নির্বাচন। একারনে এবারফুল কম আনা হয়েছে। এবার গোপাল এনেছি গতবছরের তুলনায় অর্ধেকেরও কম। গোলাপের পরে বিক্রি হয় রজনীগন্ধা। এবারর জনীগন্ধাও কম আনা হয়েছে। ক্রেতাদের তৃতীয় পচ্ছন্দেও মধ্যে থাকে গ্লাডিওলাস অথবা চন্দ্র মল্লিকা। এবার সব ফুল আনুপাতিক হারে কম আনা হয়েছে। এবার বেচাকেনা কম হবে। এমন কি ফুল অবিক্রিত থাকারও আশঙ্কা রয়েছে।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here