বহরপুরে ওসমান গনী টেডার্স থেকে গাড়ী হস্তান্তর

212

মোঃ আমিরুল হক ঃ বৃহস্পতিবার বিকালে রাজবাড়ী জেলার বালায়াকান্দি উপজেলার বহরপুর বাজারে অবস্থিত মেসার্স ওসমান গনী ট্রেডার্স থেকে ইফাদ অটোস লিমিটেডের ট্রাক্টর হস্তান্তর করা হয়েছে। এসময় ইফাদ অটোরস এর সিনিয়ার ম্যাকানিক্স মোঃ রায়হান হোসেন উপস্থিত ছিলেন। গাড়ী ক্রেতার হাতে চাবি তুলে দেন মেসার্স ওসমান গনী ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী মোঃ ওমর ফারুক ( বাবু )। দেশে শিক্ষিত বেকারদের বেকারত্ত্ব দুরিকরণের লক্ষে ইফাদ অটোস অতি সহজলভ্যে তুলে দিচ্ছে কৃষি পরিবহণ ট্রাক্টর। এরই ধারাবাহিকতায় সম্প্রতি বহরপুরের মোঃ ওমর ফারুক বিশ্বাস গড়ে তোলেন ট্রাক্টর ডিলার। ইতিপূর্বে ইফাদ অটোরস এর বিভিন্ন কর্মকর্তা এসে শুভ উদ্বোধন করেন মেসার্স ওসমান গনী ট্রেডাস নামের এই প্রতিষ্ঠানটি। ডিলার ওমর ফারুক তার অক্লান্ত পরিশ্রম আর মেধা দিয়ে বেকার যুবাদের কাজে লাগিয়ে দেশে বেকারত্ত্ব দুর করার প্রত্যয় নিয়ে কাজ করে চলেছেন। এরই ফলশ্রুতিতে বৃহস্পতিবার উপজেলার নবাবপুর ইউনিয়নের দুবলাবাড়ী গ্রামের মোঃ সমছের আলী ফকীরের ছেলে মোঃ আব্দুল মমিন ফকীর এর হাতে ট্রাক্টরের চাবি তুলে দেন।
মোঃ আব্দুল মমিন ফকীর বলেন, আমি দীর্ঘদিন যাবৎ অন্েযর গাড়ী চালাইতাম। অনেক কষ্ট করলেও সেই ভাবে বেতন পেতাম না। তাই বহরপুরের মেসার্স ওসমান গনী ট্রেডার্সের সাথে কথা বলে একটি গাড়ী কিনলাম। আমি আমার পরিশ্রম আর মেধা দিয়ে উন্নতি করতে চাই। ওমর ফারুক ভাই আমাকে অনেক বড় সুযোগ করে দিয়েছেন আমি ৩৬ মাস ভরে এই গাড়ীর টাকা পরিশোধ করতে পারবো এতে আমি অনেক খুশি।
মেসার্স ওসমান গণি ট্রেডার্সের সত্ত্বাধিকারী ওমর ফারুক বলেন, আমি ইতিপূর্বে গাড়ী ব্যবসা সম্পর্কে কিছুই বুঝতাম না। বিভিন্ন জায়গায় চলতে চলতে এই ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে পড়ি। ইফাদ অটোস আমার সাথে ব্যবসা করার ইচ্ছা পোষন করলে আমি এই ব্যবসায় জড়িয়ে পড়ি। এখন পর্যন্ত আমার এখান থেকে ১৯ টি গাড়ী বিক্রি করতে পেরেছি। আশা করছি এই বছরে আরো ভাল ব্যবসা দিতে পারবো।
প্রতিটি গাড়ীর মূল্য সাড়ে ১২ লাখ টাকা। তবে একবারে দিতে না পারলেও ৩ মাসের সহজ কিস্তিতে গাড়ী বিক্রয় করা হয়ে থাকে। বেকারত্ত্ব দুর করে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার অংশিদার হতে পারলে ইফাদ অটোর পক্ষ থেকে নিজেদের গর্বিত মনে করবো।

Advertisement

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here