• শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:২৯ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
রাজবাড়ীতে ফের ভাঙ্গন চর সিলিমপুর সরকারী পাথমিক বিদ্যালয়সহ অন্তত এক’শ মিটার এলাকা নদীগর্ভে কালুখালীতে মীর মশারফ হোসেন স্মৃতি সংসদের সাহিত্য আড্ডা মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশের সময় নারী ও শিশুসহ আটক-১১ কালুখালীতে বই পড়া কর্মসূচি উদ্বোধন পাংশা উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে শারদীয় দুর্গোৎসব উপলক্ষে মতবিনিময় সভা বালিয়াকান্দিতে মরহুম আব্দুল জলিল মিয়া প্রীতি ফুটবল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত রাজবাড়ীতে বিভিন্ন বিদ্যালয় পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক রাজবাড়ী থানা পুলিশের অভিযান বালিয়াকান্দি ইউএনওর কার্যালয়ের প্রশাসনিক কর্মকর্তাসহ ৪জন গ্রেফতার পাংশায় উন্মুক্ত জলাশয়ে বড়শি দিয়ে মাছ ধরা প্রতিযোগিতা রাজবাড়ী বিসিক শিল্প নগরী পরিদর্শন করলেন জেলা প্রশাসক

পদ্মার সব হারানো বৃদ্ধ জিন্দার মোল্লা : মন মানে না বাঁজান,তাই বারবার মাটির টানে এহানে ছুইটা আসি

প্রতিবেদকঃ / ২৬৫ পোস্ট সময়
সর্বশেষ আপডেট রবিবার, ৪ জুলাই, ২০২১

শামীম শেখ ঃ “মন মানে না বাঁজান,তাই বারবার মাটির টানে এহানে ছুইটা আসি। এহানে আসলে দুই-চারজন পরিচিত লোকজনের দ্যাহা মেলে। তাগো লগে কতা কইলে অন্তরডা জুড়ায় যায়। কিন্তু রাক্ষুসে পদ্মার দিকে তাকাইলে বুকের ভেতরডা হাহাকার করে ওঠে “। পদ্মার ভয়াবহ ভাঙ্গনে সর্বস্ব হারানো ৯০ বছর বয়সী বৃদ্ধ জিন্দার মোল্লা এভাবেই তার মনের কথাগুলো বলছিলেন।
সরেজমিন গোয়ালন্দ উপজেলার দেবগ্রাম ইউনিয়নের পদ্মা নদীর ভাঙ্গন কবলিত মুন্সিবাজার এলাকায় কথা হয় জিন্দার মোল্লার সাথে। তিনি বলেন, ২ বছর আগে দেবগ্রাম ইউনিয়নের দেবগ্রাম গ্রামে তার মত কয়েকশ পরিবারের সাজানো সংসার ছিল। কিন্তু পদ্মা নদীর ভাঙনে আমরা সবাই সবকিছু হারিয়ে দিশেহারা হয়ে পড়ি। আমি ৬ মাসের মতো স্হানীয় আরপিডিএস এর শূন্য ভিটেয় কোন মতে মাথা গুঁজে ছিলাম। এরপর গোয়ালন্দ পৌরসভার ৮ নং ওয়ার্ডের জটু মিস্ত্রি পাড়ায় মেজ ছেলের শ্বশুর একটু জায়গা দিলে সেখানে গিয়ে একটা ঘর তুলে স্ত্রীসহ ওদের সাথে কোনমতে বসবাস করছি। বড় ছেলে চলে গেছে দক্ষিণ দৌলতদিয়া এলাকায়। ছোট ছেলেটা ঢাকায় কাজ করে।ও কোনদিন বাড়িঘর করতে পারবে কিনা জানি না।
জিন্দার মোল্লা দুঃখ করে বলেন, পদ্মা শুধু আমার বাড়িঘর,ফসলি জমিই ভাঙেনি।ভেঙেছে আমার মনটাও।ভাঙনে ছেলে,মেয়ে, আত্মীয়, স্বজন, প্রতিবেশী,বন্ধু – বান্ধব সবার থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছি।
তাই মনটা যখন খুব ছটফট করে তখন কষ্ট হলেও এখানে ছুটে আসি। দু’চারজন পরিচিত লোকজনের সাথে দেখা হয়। একটু ভালো লাগে।তাছাড়া বড় ছেলেটা এখানে ১ বিঘা জমি বর্গা নিয়ে পটল ক্ষেত করেছে।এখানে আসলে ক্ষেতটারও একটু দেখাশোনা হয়।সকালে বাড়ি থেকে কিছু একটা খেয়ে আসেন।দুপুরে কাছাকাছি কোন দোকান থেকে দু’একটা বিস্কুট খেয়ে তার দিনটা কেটে যায় বলে জানান।
জিন্দার মোল্লা ক্ষোভের সাথে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে পদ্মার ভাঙনে দেবগ্রাম ও দৌলতদিয়া অঞ্চলে আমার মতো হাজার হাজার পরিবার ভাঙনের শিকার হয়ে নিঃস্ব হয়ে গেছে। এখনো ভাঙন অব্যাহত রয়েছে। কিন্তু সরকার ভাঙন ঠেকাতে কোনই ব্যবস্থা নিচ্ছে না।
এ সময় মুন্সি পাড়ার বাসিন্দা নিকাত সরদার (৭০),রহিমা বেগম (৬৫),সরিফা খাতুন (৪৫)সহ অনেকেই আশংকা প্রকাশ করে বলেন,এবারের ভাঙনে এ এলাকায় তাদের যে কয়েকটি ঘর বাদ আছে হয়তো সেগুলোও ভেঙে যাবে।
দেবগ্রাম ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান হাফিজুল ইসলাম বলেন, গত কয়েক বছরে পদ্মা নদীর ভাঙনে তার ইউনিয়নের বেশিরভাগ এলাকা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে। হাজার হাজার মানুষ অসহায় হয়ে পড়েছে। চাপা কষ্ট নিয়ে যে যেখানে পেরেছে চলে গেছে। ভাঙন ঠেকাতে বহুবার উর্ধতন কতৃপক্ষের নিকট আবেদন -নিবেদন করেও কোন কাজ হয় নি।তবে অনেকদিন ধরে শুনে আসছি দৌলতদিয়া ঘাট থেকে উজানে ৪ কিলোমিটার এলাকায় ভাঙন রক্ষায় কাজ হবে।হলে ভালো। কিন্তু যতদিনে হবে ততদিনে হয়তো আরো বহু ক্ষতি হয়ে যাবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
খান মোহাম্মদ জহুরুল হক

সম্পাদকীয় কার্যালয়ঃ
রাজবাড়ী প্রেসক্লাব ভবন (নীচ তলা),
কক্ষ নং-৩, রাজবাড়ী-৭৭০০।

Contact us: editor@dailyrajbarikantha.com

প্রকাশনাঃ
সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়নবী সার্কুলার রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত এবং দক্ষিণ ভবাণীপুর, রাজবাড়ী থেকে প্রকাশিত।

মোবাইল- ০১৭১১১৫৪৩৯৬,
বার্তা বিভাগ- ০১৭৫২০৪০৭২০,
বিজ্ঞাপন বিভাগ- ০১৯৭১১৫৪৩৯৬

error: Sorry buddy! You can\'t copy our content :) Content is protected !!