• শুক্রবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮:৩৪ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
কালুখালীতে দুই ইয়াবা সেবনকারীকে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে কারাদণ্ড ঢাকা বিভাগে সাড়ে ৩ হাজার মাদক কারবারি, শিগগির অভিযান বিএনপি পেছনের দরজা দিয়ে কিছু করার চেষ্টা করছে : তথ্যমন্ত্রী দুঃসময়ের ত্যাগী কর্মীদের কমিটিতে সুযোগ দিতে হবে :সেতুমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের প্রশংসায় পঞ্চমুখ গুতেরেস মহাসড়ক থেকে দেশীয় অস্ত্রসহ ডাকাত দলের ৩ সদস্য আটক কালুখালীতে দুই দিন ব্যাপী পুষ্টি বাগান প্রশিক্ষণ বালিয়াকান্দিতে হত্যা মামলার আসামী অটোভ্যানসহ ২জন গ্রেফতার কালুখালীতে আইসিভিজিডি অবহিত করণ সভা বহরপুর ক্যামব্রিয়ান আইডিয়াল স্কুল এন্ড ক্যাডেট একাডেমি শিক্ষার মানোন্নয়নে বদ্ধপরিকর

সাংবাদিক সম্মেলনে অভিযোগ : বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ভেঙ্গে তৃনমুলের নির্যাতিত নেতাকর্মীদের দিয়ে গঠনের দাবী

প্রতিবেদকঃ / ১৯২ পোস্ট সময়
সর্বশেষ আপডেট সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১

স্টাফ রিপোর্টার ঃ রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ভেঙ্গে তৃনমুলের নির্যাতিত নেতাকর্মীদের দিয়ে গঠনের দাবীতে সাংবাদিক সম্মেলন করেছে উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রয়াত সভাপতি নুরুল আমিন বিশ্বাসের ছেলে মোঃ আলমগীর বিশ্বাস।
সোমবার বিকাল ৪টায় বালিয়াকান্দি উপজেলা রিপোর্টার্স ক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আলমগীর বিশ্বাস অভিযোগ করে বলেন, আমি সাবেক সভাপতি, বালিয়াকান্দি উপজেলা ছাত্রলীগ, সাবেক জিএস, বালিয়াকান্দি কলেজ ছাত্র-ছাত্রী সংসদ, সভাপতি, শেখ রাসেল স্মৃতি সংসদ, সভাপতি, বালিয়াকান্দি উপজেলা কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ও গোরস্থান কমিটি, সাবেক সাধারণ সম্পাদক, উপজেলা ছাত্রলীগ। আমার পিতা মরহুম নুরুল আমিন বিশ্বাস ২০১৩ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ৩৮ বছর যাবৎ বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হিসেবে অত্যন্ত সততা ও নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করাসহ বালিয়াকান্দি সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হিসেবে দীর্ঘ ২৭ বছর দায়িত্ব পালন করেন। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে সুসংগঠিত করতে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত নিরলস ভাবে কাজ করে গেছেন। আমার মাতা খোদেজা বেগম, বালিয়াকান্দি উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভানেত্রী ও পরপর ২ বার বিপুল ভোটে নির্বাচিত উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। আমার পিতা নুরুল আমিন বিশ্বাসকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রদান করেও রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ জিল্লুল হাকিম তার বিরোধিতা করে পরাজিত করেন। ১৯৭১ সালের পর থেকেই বাংলাদেশ আওয়ামীলীগকে শক্তিশালী করতে নিজের সমস্ত অর্থ দলের জন্য দু,হাত ভরে খরচ করেছেন আমার পিতা। আমি উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দিতা করার পর থেকেই আমাকে ও আমার পরিবারের কোন সদস্যকে আওয়ামীলীগের কমিটিতে কোন প্রকার সদস্য হিসেবেও অর্ন্তভুক্ত করা হয়নি। বরং দিনের পর দিন আমার ও পরিবারকে ধ্বংস করতে নানা ধরণের মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানী করে আসছে। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে একজন অশিক্ষিত ও কালোবাজারী ব্লাকার নায়েব আলীর নিকট বিপুল অর্থের বিনিময়ে নৌকা প্রতিক বিক্রি করে ও আমাকে সতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে দাড় করিয়ে দেন এমপি জিল্লুল হাকিম। দাড় করানোর পর নেতাকর্মীদের চাপ প্রয়োগ করে আমার বিরোধিতা করার পরও আমি অল্প কিছু ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হই।
তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, সম্প্রতি বালিয়াকান্দি উপজেলা আওয়ামীলীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছে। ওই কমিটিতে নৌকা প্রতিকের বিরোধিতাকারী , বিএনপি, জামায়াত থেকে অনুপ্রবেশকারী ও এমপির অনুসারীরাই শুধু স্থান পেয়েছে। তৃনমুল আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মী ও আমার পরিবারের কোন সদস্যকেই প্রাথমিক সদস্য হিসেবেও রাখা হয়নি। বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ জিল্লুল হাকিমের চাচাতো ভাই এহসানুল হাকিম সাধন বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে প্রতিদ্বন্দিতা করেন। বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে নৌকার বিরোধিতাকারীদের দল থেকে বহিস্কার করা হলেও উপজেলা নির্বাচনে নৌকা প্রতিকের বিরোধিতাকারী এহসানুল হাকিম সাধন চাচাতো ভাই হওয়ার সুবাদে তাকে পুরস্কার সরুপ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক হিসেবে কমিটিতে রাখা হয়েছে। শুধু তাই নয় উপজেলার ঠিকাদারী কাজের সিংহ ভাগ কাজই এহসানুল হাকিম সাধন, তার পরিবারের সদস্য ও বালিয়াকান্দি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ নায়েব আলী শেখকে দিয়ে করিয়ে থাকেন। উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক, সাবেক সভাপতি, উপজেলা যুবলীগের সাবেক সভাপতি, আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ভিপি ও সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ হারুন অর রশিদ মানিক, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও জঙ্গল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, নারুয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও নারুয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম মাষ্টার, জামালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ইউনুছ আলী সরদার, জামালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি গিয়াস উদ্দিন মিয়া, নারুয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা আব্দুল খালেক মন্ডল, বীরমুক্তিযোদ্ধা লিয়াকত আলী খান, জামালপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সাইফুল বিন খালেক, বহরপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ খলিলুর রহমান খান, নবাবপুরের এম.এ কুদ্দুস, আলমগীর মোল্যা, হাসানুর রহমান কবির, শাহনৈওয়াজ, ফরিদ মোল্যাসহ অসংখ্য তৃনমুল আওয়ামীলীগের ত্যাগী নেতাকর্মীরা দলের সদস্য পদও পাননি। তাদেরকে বাদ দিয়েই ইচ্ছামতো কমিটি গঠন করা হয়েছে। বিএনপি থেকে অনুপ্রবেশকারী বহরপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিম, ইসলামপুরের আহম্মদ আলী মাষ্টার, তৌহিদুল ইসলাম, বহরপুরের আবুল কালাম আজাদ, হাজী মকবুল হোসেন, জঙ্গলের অরবিন্দু বিশ্বাস, বালিয়াকান্দির মোফাজ্জেল হোসেন মিঠু, নারুয়ার সিরাজুল ইসলাম খান, জামালপুরের আলীনুর, তালেব আলী, আঃ রব, কিউ আর মহব্বত, বহরপুরের আরব আলী, বাবুসহ বিএনপির নেতাকর্মীদেরকে বিপুল অঙ্কের টাকার বিনিময়ে দলের নৌকা প্রতিক দেওয়াসহ দলে টেনে পদ দিয়েছেন।
এমনকি বাংলাদেশ যুবলীগের প্রতিষ্ঠাতা শেখ মনির আস্থাভাজন ও কমিটির যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এবং দৈনিক বাংলারবানীর ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক বীরমুক্তিযোদ্ধা ফকির আব্দুর রাজ্জাকের ছোট ভাই আবুল কালাম ফকিরকে বাদ দিতে একটুও কারপন্য করেননি।
তিনি বলেন, রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিল্লুল হাকিম, তার স্ত্রী সাহিদা হাকিম, ছেলে আশিক মাহমুদ মিতুল হাকিমের অনুসারী ছাড়া কাউকেই কোন পদে রাখা হয়নি। এটি মনে হচ্ছে হাকিমলীগের কমিটির। এখানে কোন নির্যাতিত তৃনমুল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের স্থান নেই।
তিনি আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, আপনি ঘোষণা করেছেন তৃনমুল আওয়ামীলীগের পরিক্ষিত নেতাকর্মীদের নিয়ে কমিটি গঠনের। কিন্তু আজ বালিয়াকান্দিতে নির্যাতিত, তৃনমুল আওয়ামীলীগের কোন স্থান নেই। আমরা আপনার সদয় দৃষ্ঠি আকর্ষন করছি। বিষয়টি দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ পুর্বক কমিটি বাতিলের দাবী জানানোসহ তৃনমুল আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের দিয়ে কমিটি গঠনের দাবী জানাচ্ছি।
সাংবাদিক সম্মেলনে অন্যান্যর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও জঙ্গল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস, সাবেক সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান বিশ্বাস, সাবেক সদস্য মোঃ সিদ্দিকুল্লা মিয়া, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মোঃ বাবুল আক্তার, বালিয়াকান্দি উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ পারভেজসহ শতাধিক নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ ক্যাটাগরিতে আরো সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

সম্পাদক ও প্রকাশকঃ
খান মোহাম্মদ জহুরুল হক

সম্পাদকীয় কার্যালয়ঃ
রাজবাড়ী প্রেসক্লাব ভবন (নীচ তলা),
কক্ষ নং-৩, রাজবাড়ী-৭৭০০।

Contact us: editor@dailyrajbarikantha.com

প্রকাশনাঃ
সম্পাদক কর্তৃক বি এস প্রিন্টিং প্রেস, ৫২/২ টয়নবী সার্কুলার রোড, ঢাকা-১২০৩ থেকে মুদ্রিত এবং দক্ষিণ ভবাণীপুর, রাজবাড়ী থেকে প্রকাশিত।

মোবাইল- ০১৭১১১৫৪৩৯৬,
বার্তা বিভাগ- ০১৭৫২০৪০৭২০,
বিজ্ঞাপন বিভাগ- ০১৯৭১১৫৪৩৯৬

error: Sorry buddy! You can\'t copy our content :) Content is protected !!